সি পি আই (এম-এল) লিবারেশনের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কমিটির মুখপত্র

আমাদের প্রকাশনা (পুস্তিকা)

 

সি পি আই (এম-এল) লিবারেশন এবং ‘আজকের দেশব্রতী’ প্রকাশনার কিছু সাম্প্রতিক পুস্তিকা ই-বই আকারে সাইটের এই পাতায় সংযোজিত করা হল। আমাদের ই-বই সংযোজন প্রক্রিয়া জারি থাকবে।

পুস্তিকা ডাউনলোড করার জন্য সেই পুস্তিকাটির প্রচ্ছদ-ছবির ওপর ক্লিক করুন।


 

মা-মাটি-মানুষের সরকার? একটি মার্কসবাদী লেনিনবাদী মূল্যায়ন -অরিন্দম সেন

 

রাজা আসে যায়
রাজা বদলায়
নীল জামা গায়
লাল জামা গায়
এই রাজা আসে
ওই রাজা যায়
জামা কাপড়ের
রং বদলায়…
দিন বদলায় না


 

নারী আন্দোলন এবং কমিউনিস্ট পার্টি -অরিন্দম সেন

 

নারী-পুরুষের মধ্যে প্রাকৃতিক পার্থক্য ছাড়া অন্য সব পার্থক্যই কৃত্রিম। ঐতিহাসিক বিকাশের একটি পর্যায় এই কৃত্রিম পার্থক্যগুলোকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছে, ঐতিহাসিক বিকাশের অন্য এক পর্যায় এই সমস্ত পার্থক্যগুলো শেষ করে দেবে। এই পর্যায়টি আসলে শুরুই হয়ে গেছে। মানব জাতির দুই রূপের মধ্যকার সম্পর্ক যখন সহজ, স্বাভাবিক ও বন্ধুত্বপূর্ণ হয়ে উঠবে তখনই মানবজাতি তার হারিয়ে ফেলা অখণ্ড সত্তাকে আবার ফিরে পাবে। এই লক্ষ্যের দিকে যাত্রাপথ এমন এক বিপ্লবের মধ্য দিয়ে যাবে যার পতাকায় লেখা থাকবে ‘সমাজতন্ত্র ও নারীমুক্তি’।


বামফ্রণ্ট সরকারের পতন ও বামপন্থী পুনরুজ্জীবনের চ্যালেঞ্জ – আজকের দেশব্রতী প্রকাশনা

পশ্চিমবাংলার পরবর্তী পাঁচ বছর ও ভারতীয় বামেদের ভবিষ্যৎ – সুমন্ত ব্যানার্জী
বামেদের পড়ন্ত দশা – প্রভাত পটনায়েক
বামেদের পড়ন্ত দশা–একটি সমালোচনা মূলক ভাষ্য – হীরেন গোহাইঁ
এক বাম পুনরুজ্জীবনের লক্ষ্যে – দীপঙ্কর ভট্টাচার্য
বাংলার গুরুত্বপূর্ণ রায় এবং তারপর – অরিন্দম সেন
পশ্চিমবাংলায় বামফ্রণ্টের বিপর্যয় এবং ভারতীয় বামপন্থীদের সামনে উঠে আসা চ্যালেঞ্জ – ২৮-২৯ মে, ২০১১ দিল্লীতে অনুষ্ঠিত বৈঠক থেকে প্রকাশিত সারা ভারত বাম সমন্বয়ের বিবৃতি
সি পি আই (এম)-এর বিংশতি কংগ্রেসের খসড়া রাজনৈতিক প্রস্তাব : সত্যকে অস্বীকার করে আর কতকাল? – রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক


গ্রীনহাণ্ট হল গণতন্ত্রের বিরুদ্ধে যুদ্ধ – একে প্রতিরোধ করুন : ‘মাওবাদ’, রাষ্ট্র ও ভারতের কমিউনিস্ট আন্দোলন – অরিন্দম সেন

মাওবাদের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক-সামরিক অভিযান আসলে ভারতীয় জনগণের বিরুদ্ধেই যুদ্ধ। তাঁদের বুনিয়াদি গণতান্ত্রিক অধিকারসমূহের ওপর এক বহুমুখী আক্রমণ। কেন্দ্রীয় ও রাজ্য সরকারগুলো সকলেই আজ রাষ্ট্র বনাম মাওবাদী সংঘাতকে কাজে লাগাচ্ছে বুনিয়াদি ইস্যুগুলোতে জনগণের সংগ্রাম দমন করার জন্য, সমস্ত রকম প্রতিবাদ ও প্রতিরোধের কণ্ঠরোধের জন্যে। মাওবাদীরাও বেপরোয়া নৈরাজ্যবাদী কার্যকলাপ চালিয়ে যাচ্ছেন, ফলে গণতান্ত্রিক জনমত তাঁদের থেকে দূরে সরে যাচ্ছে, এমনকি বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে যাচ্ছে। রাষ্ট্রের পক্ষে সহজতর হয়ে উঠছে কঠোরতর দমনপীড়নকে যুক্তিসঙ্গত প্রতিপন্ন করা। রাষ্ট্রের এই রাজনৈতিক-সামরিক অভিযানের বিরুদ্ধে দৃঢ় প্রতিরোধ গড়ে তোলার সাথে সাথে আমাদের অবশ্যই ‘মাওবাদী’ নৈরাজ্যবাদ ও বিপ্লবী মার্কসবাদের মধ্যেকার ফারাকটাকেও জোরের সাথে তুলে ধরতে হবে।


রাজারহাট উপনগরীর অন্তরালে আর্ত মানুষের কান্না – এক সি পি আই (এম) কর্মীর জবানবন্দী

আমাদের চোখের আড়ালে, বলা যায় চোখ বন্ধ থাকায়, সিঙ্গুর-নন্দীগ্রামের আরও আগেই শুরু হয়ে গিয়েছিল উন্নয়নের সন্ত্রাস। রাজারহাট-নিউ টাউন এই উন্নয়ন-সন্ত্রাসের চরম নিদর্শন। ঐ অঞ্চল থেকে একদল বামপন্থী কর্মী ও উচ্ছেদ হওয়া কৃষক তাদের জীবন-যন্ত্রণা জানাতে আমাদের কাছে এসেছিলেন। এই ছোট্ট পুস্তিকায় তাদের সেই বিস্তৃত ও মর্মস্পর্শী বিবরণীর অংশবিশেষ আমরা হাজির করার চেষ্টা করেছি।


ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রাম ঃ অন্য চোখে – দীপঙ্কর ভট্টাচার্য

ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের কাহিনীতে সাধারণ মানুষ, শ্রমিক এবং কৃষকদের কথা উল্লিখিত থাকলেও তা করা হয়েছে নিছক সংখ্যা হিসাবে। অবয়বহীন, নামহীন মূক বধির সংখ্যা মাত্র। দেখানো হয়েছে গান্ধী এবং তার কংগ্রেসের দেওয়া ডাকে হাজারে হাজারে মানুষ কীভাবে নিয়মিতভাবে সাড়া দিয়েছিল। কখনও কখনও হয়ত তাদের ওপর আরোপিত সীমানা অতিক্রম করে ফেলার পর গান্ধী পিছন থেকে টেনে ধরতে বাধ্য হয়েছিল। কিন্তু তাদের কখনই সক্রিয় কর্মধারার মধ্যে দেখানো হয় না। কখনই এইভাবে চিত্রিত করা হয়নি যে নারী-পুরুষ নির্বিশেষে এই মানুষজন তাদের নিজস্ব লক্ষ্য, গতিশীলতা এবং উদ্যোগ নিয়ে নিজেদের লড়াই সংগঠিত করছেন, কাঙ্খিত অভিন্ন লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য নিজেরাই নিয়ন্তা হয়ে ওঠার চেষ্টা করছেন। এইভাবে শ্রমজীবী মানুষকে বর্তমান সময়ে তার প্রাপ্য ভূমিকা থেকেই যে শুধু বঞ্চিত করা হয়েছে, তা নয়। তাদের অতীত ভূমিকাকেও অস্বীকার করা হয়েছে। নিজস্ব অতীত থেকে তাদের বিচ্ছিন্ন করে স্থায়ী শরণার্থী বানিয়ে তাদের ঠেলে দেওয়া হয়েছে ইতিহাসের প্রান্তসীমায়। সুতরাং, শৃঙ্খলিত সরকারী ইতিহাসকে ভেঙে আমাদের উজ্জ্বল উত্তরাধিকারের পুনর্ঘোষণা করতে হবে। সেই উত্তরাধিকার, যা আমাদের বর্তমান অস্তিত্বকে আলোকিত করে, স্বকীয় পরিচিতির মধ্যে যুক্তিসঙ্গত গর্বের অনুভূতি নিয়ে আসে।


6 Comments on “আমাদের প্রকাশনা (পুস্তিকা)”

  1. Arnab Mookherjee says:

    Bamfront Sarkar er Poton O Bamponthi Punurjiboner challange——– Etar link ta nei thakle bhalo hoto.

    Charu Majumder And His Legacy or Charu Majumder O tar Uttaridhikar Ei booklet ti thakle Bhalo hoto.

    • দেশব্রতী says:

      নিশ্চয়ই পাবেন। আমরা পিডিএফ কপি পেলেই এখানে সব প্রকাশনা গুলি একে একে তুলে দেব। ‘বামফ্রণ্ট সরকারের পতন ও বামপন্থী পুনরুজ্জীবনের চ্যালেঞ্জ’-এর লিংকটিও শীঘ্রই সচল করা হবে।

  2. souvik says:

    খুব ভালো একটা উদ্যোগ শুরু হল। আমার কাছে আরো যে বইগুলোর কপি আছে সেগুলোও তুলে দেওয়া যাবে
    ১) মার্কসবাদ শিক্ষা : শুরু করব কোথা থেকে – অরিন্দম সেন, আই আই এম এস প্রকাশনা – প্রকাশকাল মার্চ ২০০৪
    ২) মার্কসবাদ : জীবন্ত আত্মা ও মৃত শব্দ – অরিন্দম সেন, প্রকাশকাল – উল্লিখিত নেই, পার্টি স্কুল এর জন্য লিখিত
    ৩) মার্কসবাদের আলোয় আজকের পুঁজিবাদ ও বিশ্বায়ন (কমিউনিস্ট ম্যানিফেস্টোর দেড়শ বছর) – দীপঙ্কর ভট্টাচার্য ও অরিন্দম সেন, প্রকাশকাল ফেব্রুয়ারী ২০০১
    ৪) মার্কসবাদী দর্শন – আই আই এম এস দিল্লি প্রকাশিত (কোনও লেখকের নাম উল্লিখিত নেই) প্রকাশকাল – ১৯৮১ [ এই বইয়ের পরিশিষ্টে ভারতীয় দর্শনের বিভিন্ন ধারা নিয়ে সংহত বিশ্লেষণ রয়েছে]
    ৫) কমিউনিস্টরা কি চায় ? [প্রশ্ন উত্তর ভিত্তিক] – দেশব্রতী প্রকাশনা, প্রকাশকাল – ১৯৯৬

  3. Arnab Mookherjee says:

    “Bharoter shadinota Songram Onno Choke” Ei boi ti ki ekhon pao jabe?


মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s